অসভ্য আমি।

সভ্য সমাজের অসহ্য আতিথেয়তার যন্ত্রণায় উদ্বেলিত হয়ে আমি আজ অসভ্য জগতের বাসিন্দা।
আমি সঞ্চালকের চরিত্রে শব্দের বোনা জালের করি নিন্দা।
আমি উচ্চতার গভীরে খেই হারানো উচ্চপদস্ত মাঝি।
আমি নিম্নের নোনো জল ঠেকাতে বালির বাঁধ সাজি।
আমি ইট, বালি, সিমেন্টের সাধা ঘরে দম আটকে ডুকরে মরি।
আমি সাধারনত খোলা আকাশের এলোমেলো বাতাসে শিউলি হয়ে ঝরি।
আমি সমাজ নামক শৃঙ্খল ভাঙতে উন্মুখ।
আমি পরিবারের বাঁধনে বাঁধা পড়তে ন‌ই উৎসুক।
আমি অযাচিত গল্পের শুরু থেকে শেষ।
আমি আপন কলঙ্কের বোঝা বেয়ে নিঃশেষ।

Different Shades!

We wore different shades of gray.
Your dominant was white,
Mine was the navy blue,
There was no one which was right prey.

You got the life floating from your shoulder.
I got to stop the craziness with a boulder.
You got the colours of all the seasons on.
I had to admit I was very accident-prone.

To get the gray to shine like the light,
I got to make my inner self altogether bright.
The lively vibe from your aura,
Gave me the sense of happiness with flora.

Shades were grasping the breath, so free.
I ran, sometimes swam to be the green tree.
You gave me the perspective to be new.
I wanted to have all clear sky with no hue

Hollow Look!

I looked at the open blue sky.
I was not intended to be shy.
I looked at the colourless water.
I found myself writing a letter.
I looked at the pale faced man.
I found myself standing under the bridge’s span.
I looked to find something totally white.
I found only the pale graphite.
I looked for the source, a little powerful.
I found some utterly weak tool.
I looked at nothing but the empty air.
I found myself floating, not at all fair.
I looked at the youth around me.
I found disappointments in the life spree.
I looked again and wanted to look high.
I could only find that birds fly.
My sight belonged to the hollowness.
No matter how I much I look, I will always burn in the furnace.

যদি হতো তবে।

ভাবনার জাল আর মাছ ধরার জাল যদি একি হতো,
তবে ফাঁকি দেয়া যেতো খুব সহজে।
যদি অলস বসে থাকার কষ্ট সহজে ধুলোয় মেশানো যেতো,
তবে সেই ধুলো মাখা পথে হাঁটা হতো অনন্তকাল।
যদি নেশায় জর্জরিত শরীর হঠাৎ পেতো বিনাশের ঠিকানা,
তবে হতে হতো না আর নেশার্তদের বন্ধু।
যদি সব অপকল্পনাকে এক করে একটি কল্পপুরী বানানো যেতো,
তবে স্বপ্নগুলোর মিছে কোলাহল আর শুনতে হতো না।
যদি হতো সব দিনের আলো একটি বাক্সে বন্দী,
তবে চাঁদের আলোর রোমাঞ্চের যন্ত্রণা সহ্য করতে হতো না।
যদি পৃথিবীটাকে মোড়ানো যেতো অদৃশ্য আনন্দের চাদরে,
তবে দুঃখের কাহিনী আর তৈরি হতো না।
যদি চোখ মুদলেও সব দেখা যেতো,
তবে আর অগোচরে থাকতে হতো না।
যদি কাছে আসার জন্য দূরত্ব পাড়ি দিতে না হতো,
তবে সম্মিলিত হবার ইচ্ছে হতো না কখনো।
যদি এমন হতো যে কিছুতেই কিছু হয়ে উঠতো না,
তবে অযথা কোন কিছু করার ইচ্ছে আর হতো না।
সবকিছু যদি যদির মধ্যে না থেকে হয়ে যেতো বাস্তব,
তবে বাস্তবতার দৌরাত্ম্যে আর উদ্বেলিত হতে হতো না।
যদি এমনটাই হতো, তবে যদির মতোই হতো সব।